আখাড়ায় পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ায় ২ জনকে পিটিয়ে আহত

0
341

আখাউড়া প্রতিনিধি.আখাউড়ার মনিয়ন্দ ইউনিয়নে পাওনা টাকা ফেরত চাওয়াকে কেন্দ্রে করে প্রতিপক্ষের মারপিটে বৃদ্ধা মাসহ ২ জন আহত হয়েছেন। গতকাল শনিবার রাতে শান্তিনগর গ্রামে জসিম মৃধার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন-মনিয়ন্দ ইউনিয়নের শান্তিনগর গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের স্ত্রী মোছাম্মত ফুলবরের নেসা এবং তার ছেলে সুমন মিয়া। আহতদের আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে আহত ফুলবরের নেসার অবস্থা আশঙ্কাজনক হয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ব্রাহ্মণবাড়ীয়া সদর হাসপাতলে রেফার করেন হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক। এঘটনায় আখাউড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আহতের পরিবার।

আহত সুমন মিয়া জানান,শান্তিনগর গ্রামের জসিম মৃধার(আমার শশুড়)গত ৪ বছর আগে ছেলের চাকরির জন্য টাকা প্রয়োজন কথা বলে আমার পরিবারের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা আদায় করে। কিন্তু দীর্ঘদিনেও  আমার শশুড় টাকা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় তার পাওনা টাকা ফেরত চায়। এপর্যন্ত বিচার শালিশের মাধ্যমে মাত্র এক লাখ ৭০ হাজার টাকা ফেরত পায়। কিন্তু বাকী দুই লাখ ৩০ হাজার টাকা ফেরত দিতে বিভিন্ন তালবাহান করতে থাকে জসিম মৃধা।

তিনি আরো জানান, গতকাল আমার শশুড় বাড়িতে পারিবারিক শালিশে পাওনা  টাকা ফেরত চাইতে গেলে ক্ষিপ্ত হয়ে  আমার স্ত্রী রিফাত সুলতানা,আলী হাশেম,আলী আক্কাস,জসিম মৃধা, ফেরদৌসা এবং জেসমিন আক্তার আমাদের উপর মারপিট করতে থাকে। এসময় বাধা দিতে গেলে আমাকে ও আমার বৃদ্ধ মাকে মারধরে আহত করে।

এ বিষয়ে জসিম মৃধার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার মেয়ে এবং মেয়ের জামাই তার ব্যাবসায়ীক কাজে লাগানর জন্য বিভিন্ন এনিজিও ব্যাংক থেকে কয়েক লক্ষ টাকা উত্তোলন করে এবং মেয়ের জামায়ের মায়ের গহনা বিক্রি করে ।কিন্ত তারা এখন আমার পরিবারের উপর সেই টাকার ভার দিচ্ছে।

এই বিষয়ে মনিয়ন্দ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো.কামাল ভূঁইয়া জানান, আমার  ইউনিয়নের মহিলা সংরক্ষিত ৭,৮.৯ নং ওয়ার্ডে সদস্য রোকেয়া ও ৭ নং ওয়ার্ড মেম্বার নাজিরের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারি। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে ন্যায় বিচারের আওতায় আনা হবে।