অবশেষে চেয়ারম্যান মনছুরের নামে মামলা, আদালত থেকে সমন জারি

0
166

মোঃ আব্দুল হান্নানঃ- শালিসের নামে ৩০০ টাকা মূল্যের অলিখিত ননজুডিসিয়াল ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর আদায় করে ৭০ বছর বয়স্ক বৃদ্ধ মোঃ নুর মিয়াকে সালিশে বসিয়ে লাঞ্ছিত করায় সেই শোক সহ্য করতে না পেরে ব্রেইন স্টোক করা নুর মিয়া অবশেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার চাপরতলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনছুর আলী ভূইয়ার (৩৫) বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ৬ মার্চ ২০২২ তারিখে পি- ২২৪/২২ মামলা দায়ের করে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে চেয়ারম্যান মনছুরের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছে বলে বাদীর আইনজীবি এডঃ কামরুজ্জামান মামুন জানিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২২ জেলার নাসিরনগর উপজেলার চাপরতলা ইউনিয়নের খান্দুরা গ্রামের একটি গরু চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে মসজিদের সামনে বসে শালিসের নামে লোকজন জড়ো করে ইউপি চেয়ারম্যান মনছুর আলী ভূইয়া গ্রামের গ্রামের মৃত রমুজ আলীর ছেলে ৭০ বৎসর বয়স্ক মোঃ নুর মিয়াকে ডেকে নিয়ে লোকজনের উপস্থিতিতে সালিশের নামে বৃদ্ধ নুর মিয়ার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ৩০০ টাকার অলিখিত ননজুডিসিয়াল ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়ে দুই লক্ষ টাকা দাবী করে এবং ওই সময় বৃদ্ধ নুর মিয়াকে উপস্থিত লোকজনের সামনে মলাই মিয়া নামক এক ব্যক্তি বৃদ্ধ নুর মিয়ার হাত ধরে টেনে চেয়ার থেকে নামিয়ে লাঞ্ছিত করে বলে জানান নুর মিয়া ও তার মেয়ে আফিয়া বেগম।

সেই অপমান ও শোক সহ্য করতে না পেরে বৃদ্ধ নুর মিয়া ব্রেইনে মারাত্বক আঘাত প্রাপ্ত হয়ে ব্রেইনষ্টোক করে। পরে মূমূর্য অবস্থায় নুর মিয়াকে নাসিরনগর আধুনিক হাসপাতালে নিয়া আসলে ডাঃ খন্দকার আব্দুল কাইয়ুম ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখানে চিকিৎসা দুই দিন চিকিৎসার পর নুর মিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। কিছুটা সুস্থ্য হয়ে ৬ মার্চ নুর মিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতে উপস্থিত হয়ে মামলা দায়ের করলে, আদালত চেয়ারম্যান মনছুর আলীর বিরুদ্ধে সমন ইস্যু করেছে বলে আদালত সূত্রে জানা গেছে।